প্রতিরক্ষামন্ত্রক

লাদাখ সফরে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী শ্রী রাজনাথ সিং ; ৬টি রাজ্য এবং ২টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিআরও-এর নির্মিত ৬৩টি সেতু জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করেছেন

Posted On: 28 JUN 2021 5:25PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি,   ২৯ জুন,  ২০২১

 

লাদাখ সফররত প্রতিরক্ষা মন্ত্রী শ্রী রাজনাথ সিং আজ লেহ্ থেকে ৮৮ কিলোমিটার দূরে কিউঙ্গামে আয়োজিত একটি অনুষ্ঠানে ৬টি রাজ্য ও ২টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের সীমান্ত সড়ক সংস্থা-বিআরও-এর তৈরি ৬৩টি সেতু জাতির উদ্দেশে উৎসর্গ করেছেন । অনুষ্ঠানে লাদাখের লেফটেন্যান্ট গভর্নর শ্রী আর কে মাথুর, লাদাখের সাংসদ, নর্দান কম্যান্ডের জেনারেল অফিসার-কম্যান্ডিং ইন চীফ লেফটেন্যান্ট জেনারেল ওয়াই কে যোশী, সীমান্ত সড়ক সংস্থার মহানির্দেশক লেফটেন্যান্ট জেনারেল রাজীব চৌধুরী সহ অন্যান্য সেনা আধিকারিক ও প্রশাসনিক কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন ।

অরুণাচলপ্রদেশ, হিমাচলপ্রদেশ, উত্তরাখন্ড, সিকিমের মুখ্যমন্ত্রীরা এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চল উন্নয়ন মন্ত্রকের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী ডাঃ জিতেন্দ্র সিং সহ অন্যান্য ব্যক্তিবর্গ এদিনের এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে ভার্চুয়াল মাধ্যমে যোগ দেন । 

কিউঙ্গাম থেকে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী এদিন লাদাখের লেহ্-লোমা সড়কের ওপর নির্মিত ৫০ মিটার দীর্ঘ সেতুর উদ্বোধন করেন । পাশাপাশি শ্রী সিং আরও ৬২টি সেতুর উদ্বোধন করেন । এরমধ্যে লাদাখের ১১টি, জম্মু-কাশ্মীরের ৪টি, হিমাচলপ্রদেশের ৩টি, উত্তরাখন্ডের ৬টি, সিকিমের ৮টি, নাগাল্যান্ড ও মণিপুরের ১টি করে এবং অরুণাচলপ্রদেশের ২৯টি সেতু রয়েছে । এই প্রকল্পগুলির জন্য ব্যয় হয়েছে ২৪০ কোটি টাকা । এই সেতুগুলি নির্মিত হওয়ার ফলে সীমান্ত অঞ্চলে যোগাযোগ ব্যবস্থাপনা ক্ষেত্রে আমূল পরিবর্তন আসবে । 

অনুষ্ঠানে ভাষণে শ্রী রাজনাথ সিং জানান, দুর্গম অঞ্চলে যোগাযোগ ব্যবস্থাপনা গড়ে তোলার ক্ষেত্রে বিআরও-এর কাজ প্রশংসনীয় । বিশেষত কোভিড ১৯ অতিমারি পরিস্থিতির মধ্যেও যেভাবে বিআরও এই সেতু নির্মাণের কাজ চালিয়ে গেছে, তা যথেষ্ট তাৎপর্যপূর্ণ । তিনি বলেন, এই সেতুগুলি প্রত্যন্ত  অঞ্চলে অবস্থিত একাধিক গ্রামের জন্য এক একটি লাইফ-লাইনে পরিণত হয়েছে । দেশের উন্নয়নের জন্য বিশেষত সীমান্ত অঞ্চলে যোগাযোগ ব্যবস্থাপনার গুরুত্বের কথা উল্লেখ করে তিনি সুদূর সীমান্ত অঞ্চলের পরিকাঠামোগত উন্নয়ন সুনিশ্চিত করার জন্য সরকারের দৃঢ় পদক্ষেপের কথা পুনরায় স্মরণ করিয়ে দেন । তিনি আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে জানান যে, এই সেতুগুলি দেশের সুরক্ষা ব্যবস্থাকে জোরদার করে তোলার পাশাপাশি উন্নত যোগাযোগ ব্যবস্থাপনা গড়ে তুলবে এবং সংশ্লিষ্ট রাজ্যের আর্থিক উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে ।

জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখকে দুটি পৃথক পৃথক কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে ভাগ করার বিষয়ে সরকারের সিদ্ধান্তের ব্যাপারে প্রতিরক্ষা মন্ত্রী জানান যে, এটি সরকারের শক্তিশালী ও দূরদর্শী পদক্ষেপ । এতে জাতীয় ঐক্য মজবুত করবে এবং বাইরের দেশের পৃষ্ঠপোষকতায় সন্ত্রাসবাদী কর্মকান্ড হ্রাস করবে । আর্থ-সামাজিক ক্ষেত্রে এক নতুন পথ উন্মুক্ত হবে বলেও আশা প্রকাশ করেন তিনি । লাদাখের উন্নয়নের বিষয়ে শ্রী সিং জানান, প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনা, জাতীয় কৌশল বিকাশ যোজনা, জাতীয় গ্রামোন্নয়ন মিশন, প্রধানমন্ত্রী কিষাণ সম্মাননিধি ইত্যাদি একাধিক কল্যাণমূলক পরিকল্পনা বাস্তবায়িত হচ্ছে । এই অঞ্চলের কল্যাণে সরকার দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ।

গতবছর গালওয়ান উপত্যকায় ভারতীয় সেনাবাহিনী যে সাহসিকতার পরিচয় দিয়েছে, তা প্রশংসনীয় । প্রতিবেশী দেশের সঙ্গে বার্তালাপ চালিয়ে সমস্যা সমাধানের পথে ভারত বিশ্বাসী । তিনি বলেন, ভারত শান্তিপ্রিয় দেশ, কখনোই আগ্রাসনে বিশ্বাসী নয় । তবে, যদি কোন প্ররোচনামূলক ঘটনা ঘটে তার উপযুক্ত জবাব দেওয়ার জন্য ভারত সবসময় প্রস্তুত রয়েছে । সীমান্তে সুরক্ষা ব্যবস্থা জোরদার করে তুলতে স্বশস্ত্র বাহিনীর সম্মিলিত প্রয়াসের কথাও তুলে ধরেন তিনি । সেনাবাহিনীকে আধুনিকীকরণ এবং স্বনির্ভর করে তুলতে সরকারের গৃহীত পদক্ষেপের কথাও জানান প্রতিরক্ষা মন্ত্রী । তিনি বলেন, শক্তিশালী ও সমৃদ্ধশালী দেশ গঠনের পথে সরকার এগিয়ে চলেছে । 

এদিন অনুষ্ঠানে সীমান্ত সড়ক সংস্থার মহানির্দেশক এই সেতু নির্মাণের বিষয়ে বক্তব্য রাখেন । তিনি বলেন, এই সেতুগুলি কৌশলগত ভাবে খুবই গুরুত্বপূর্ণ । প্রত্যন্ত সীমান্ত অঞ্চলে সামগ্রিক, অর্থনৈতিক বিকাশে এই সেতুগুলি গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করবে বলেও তিনি উল্লেখ করেন । 

 

CG/SS/RAB



(Release ID: 1731030) Visitor Counter : 37