বিজ্ঞানওপ্রযুক্তিমন্ত্রক

কোভিড সুরক্ষা মিশনের অধীনে কোভ্যাকসিন উৎপাদন আরও বাড়াতে ব্যবস্থা গ্রহণ

Posted On: 16 APR 2021 5:01PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ১৬ এপ্রিল, ২০২১

 

আত্মনির্ভর ভারত-৩ মিশন এর আওতায় কেন্দ্রীয় সরকার দেশে তৈরি কোভিড ভ্যাকসিন গুলির উন্নয়ন এবং উৎপাদন ত্বরান্বিত করতে কোভিড সুরক্ষার কথা ঘোষণা করেছিল। ভারত সরকারের জৈব প্রযুক্তি বিভাগের মাধ্যমে যার প্রয়োগ হয়েছিল।

এই মিশন এর আওতায় কেন্দ্রীয় সরকারের জৈব প্রযুক্তি বিভাগ উন্নততর ভ্যাকসিন উৎপাদনের জন্য অনুদান হিসেবে আর্থিক সহায়তা দিচ্ছে। দেশীয়ভাবে তৈরি কোভ্যাকসিনের বর্তমান উৎপাদন ক্ষমতা ২০২১-এর মে- জুন মাসে দ্বিগুণ করা হবে। এরপর জুলাই-আগস্ট মাসে তা আরও সাত গুণ বৃদ্ধি পাবে। অর্থাৎ এপ্রিল, ২০২১-এ এক কোটির ভ্যাকসিনের ডোজ থেকে উৎপাদন বেড়ে জুলাই-আগস্ট মাসে তা ৬ থেকে ৭ কটি হয়ে যাবে। শুধু তাই নয় সেপ্টেম্বরের মধ্যে এই কোভ্যাকসিনের ডোজ ১০ কোটিতে পৌঁছে যাবে বলে আশা করা হচ্ছে।

কয়েক সপ্তাহ আগে আন্ত মন্ত্রণালয়ের প্রতিনিধি দল ভারতের দুটি প্রধান ভ্যাকসিন প্রস্তুতকারী সংস্থার সাইটগুলি পরিদর্শন করেছিল। কিভাবে ভ্যাকসিন এর উৎপাদন বাড়ানো যায় সে সম্পর্কেও আলোচনা হয়। ভ্যাকসিনের উৎপাদন বৃদ্ধির পরিকল্পনার অংশ হিসেবে হায়দ্রাবাদের ভারত বায়োটেক লিমিটেডের পাশাপাশি অন্যান্য সরকারি সংস্থাগুলিকেও পরিকাঠামো এবং প্রযুক্তি দিয়ে সহায়তা করা হচ্ছে। ভারত বায়োটেক-এর নতুন বেঙ্গালুরু কেন্দ্রের জন্য ভারত সরকারের পক্ষ থেকে ৬৫ কোটি টাকা অনুদান হিসেবে দেওয়া হচ্ছে।

এছাড়াও তিনটি সরকারি সংস্থাকে ভ্যাকসিন উৎপাদনের জন্য  আর্থিকভাবে সহায়তা করা হচ্ছে।

মুম্বাইয়ের হফকিন বায়ো ফার্মাসিটিক্যাল কর্পোরেশন লিমিটেডকেও ৬৫ কোটি টাকা অনুদান হিসেবে দেওয়া হচ্ছে। ভ্যাকসিন প্রস্তুত করার জন্য তাদের বারো মাস সময় দেওয়া হয়েছে। যদিও কেন্দ্রীয় সরকার প্রয়োজনীয় সহায়তা নিয়ে এই কাজ সমাসের শেষ করার জন্য আবেদন জানিয়েছে। এটি উৎপাদন শুরু করলে প্রতিমাসে কুড়ি মিলিয়ন ডোজ করা সম্ভব হবে।

এর পাশাপাশি হায়দ্রাবাদের ইন্ডিয়ান ইমিউনোলজিক্যালস লিমিটেড এবং বুলন্দশায়ের ভারত ইমিউনোলজিক্যালস অ্যান্ড বায়োলজিক্যালস লিমিটেড কেও সহায়তা দেওয়া হচ্ছে। যাতে তারা আগস্ট সেপ্টেম্বরের মধ্যে ১০-১৫ মিলিয়ন ডোজ উৎপাদন করতে পারে।

 

CG/ SB



(Release ID: 1712348) Visitor Counter : 76