শিল্পওবাণিজ্যমন্ত্রক

বণিক সংগঠনগুলির প্রতিনিধিদের সঙ্গে শ্রী পীযুষ গোয়েলের স্বাক্ষাৎ

Posted On: 29 MAY 2020 9:59AM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ২৯ মে, ২০২০

 



শিল্প ও বাণিজ্য মন্ত্রী শ্রী পীযুষ গোয়েল বৃহস্পতিবার বণিক সংগঠনের প্রতিনিধিদের সঙ্গে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে বৈঠক করেন। তিনি বলেন, লকডাউনের সময় কোভিড-১৯ মহামারীর বিরুদ্ধে যুদ্ধে সারা দেশ সক্রিয় হয়েছে এবং এই মহামারী প্রতিরোধ করার জন্য ক্ষমতা বৃদ্ধি করেছে। বিভিন্ন ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম যেমন౼ মাস্ক, স্যানিটাইজার, গ্লাভস্, ব্যক্তিগত সুরক্ষা সরঞ্জাম অর্থাৎ পিপিই দেশে তৈরি করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য পরিকাঠামোর উন্নয়ন ঘটানো হয়েছে এবং জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করা হয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর এই অভূতপূর্ব সংকটের মোকাবিলায় আহ্বানে সাড়া দিয়ে জনসাধারণ সমস্ত সরকারি নীতি নির্দেশিকা ও নিয়মাবলী মেনে চলছেন। এই সংকটের সময়ে আরোগ্য সেতু অ্যাপ তৈরি করা হয়েছে, যা রক্ষাকবচ, বন্ধু ও বার্তাবাহকের কাজ করছে। জনসাধারণের জীবনশৈলীর পরিবর্তন ঘটেছে ౼ ভিন্ন পরিস্থিতিতে কাজ করার জন্য বা লেখাপড়া করার বিষয়ে মানুষ তার অভ্যেসের পরিবর্তন ঘটিয়েছে। মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী সঠিক সময়ে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করায় তা দেশের পক্ষে অত্যন্ত সহায়ক হয়েছে। পৃথিবীর অনেক দেশের সঙ্গে তুলনা করলে বলা যায়, আমাদের দেশ এই মহামারীর মোকাবিলায় অনেক সুবিধেজনক অবস্থায় রয়েছে। 


খুচরো ব্যবসায়ীরা এই লকডাউনের সময়ে বেশ কিছু সমস্যার সম্মুখীন হয়েছেন। যদিও বর্তমানে কিছু নিয়মকানুন শিথিল করার ফলে তাঁদের মধ্যে সিংহভাগই দোকান খোলার অনুমতি পেয়েছেন। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশিকা পাওয়ার পর বিভিন্ন শপিংমলে দোকান খোলার বিষয়ে ভবিষ্যতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। শ্রী গোয়েল বলেন, কোভিড-১৯ এর মোকাবিলা করার জন্য কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী যে আত্মনির্ভর প্যাকেজের ঘোষণা করেছেন সেখানে অতিক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পোদ্যোগের জন্য ৩ লক্ষ কোটি টাকার ঋণদানের সংস্থান রয়েছে। এর আওতায় এই সমস্ত খুচরো দোকানদাররাও থাকছেন। তিনি বলেন, অতিক্ষুদ্র, ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্পোদ্যোগের সংজ্ঞার পরিবর্তন করার ফলে এইসব ব্যবসায়ীদের সুবিধে হবে। অর্থমন্ত্রী এক আলোচনায় জানিয়েছেন, ব্যবসায়ীদের যে কোনো সমস্যার সমাধানে তিনি খোলা মনে বিভিন্ন পরামর্শ বিবেচনা করবেন। শ্রী গোয়েল খুচরো ব্যবসায়ীদের জানান, ই-কমার্সের জন্য তাঁদের শঙ্কিত হওয়ার কোনো কারণ নেই। কারণ সাধারণ মানুষ বুঝতে পেরেছেন সঙ্কটের সময়ে তাঁদের বাড়ির পাশে থাকা ইঁট ও চুনবালি দিয়ে তৈরি দোকান ঘরগুলিই তাদের সাহায্য করবে। প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ সংস্কারের উদ্যোগ নিয়েছেন, যার ফলে ভারত শক্তিশালী দেশ হয়ে উঠবে। মুদ্রা লোন সহ বিভিন্ন ঋণের বিষয়ে বণিক সম্প্রদায় যেসব সমস্যার সম্মুখীন হন সেগুলির সমাধানের জন্য শ্রী গোয়েল খুব শীঘ্রই অর্থ মন্ত্রকের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন।


মন্ত্রী বলেন, অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের বেশ কিছু লক্ষণ আবারও দেখা যাচ্ছে। গত বছর এই মাসে যত বিদ্যুৎ ব্যবহার হয়েছিল চলতি বছরেও এই সময়ে প্রায় সেই একই পরিমান বিদ্যুৎ ব্যবহৃত হচ্ছে। অক্সিজেনের উৎপাদন বৃদ্ধি পেয়েছে। এপ্রিল মাসে রপ্তানির হার প্রায় ৬০ শতাংশ কমে গিয়েছিল। বর্তমানে আবারও সেই হার ধীরে ধীরে বৃদ্ধি পাচ্ছে। শ্রী গোয়েল জানান, বিভিন্ন বাণিজ্যিক উপকরণের রপ্তানি যেমন কমেছে, একই সঙ্গে আমদানির পরিমাণও হ্রাস পেয়েছে। এর ফলে বাণিজ্যে ঘাটতির পরিমাণও কমেছে।


শ্রী গোয়েল আরো বলেন, গত দু-মাসে ব্যবসায়ী এবং ভারতীয় উৎপাদকদের দুর্দশা লাঘব করার জন্য সরকার বেশ কিছু উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। তিনি ভারতীয় পণ্য সামগ্রীর ব্যবহার বাড়ানো এবং সেগুলি প্রচার করার জন্য ব্যবসায়ীদের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি বলেন, তাঁদের আত্মপ্রত্যয় এবং বলিষ্ঠ পদক্ষেপের মধ্য দিয়েই সাফল্য অর্জিত হবে। 

 

 


CG/CB/SKD



(Release ID: 1627692) Visitor Counter : 20