কৃষিমন্ত্রক
azadi ka amrit mahotsav

জি-২০ গোষ্ঠী ভুক্ত দেশগুলির কৃষি মন্ত্রীদের ভার্চুয়াল বৈঠকে যোগ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রী

Posted On: 18 SEP 2021 3:50PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ১৮ সেপ্টেম্বর, ২০২১

 

ইতালির সভাপতিত্বে আয়োজিত জি-২০ গোষ্ঠী ভুক্ত দেশগুলির কৃষি মন্ত্রীদের ভার্চুয়াল বৈঠকে আজ যোগ দিয়েছেন কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র সিং তোমার।"সুস্থায়ী আর্থিক উন্নয়নের পিছনে চালিকা শক্তি হল গবেষণা" শীর্ষক আলোচনায় কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রী বলেছেন, খাদ্য নিরাপত্তার সমস্যা মোকাবিলা, কৃষক ও কৃষি কাজের সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিদের আয় বৃদ্ধি এবং সাধারণ মানুষের জীবিকার সংস্থানে  প্রাকৃতিক সম্পদের ব্যবহারের ক্ষেত্রে কৃষি গবেষণা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছে।খাদ্য নিরাপত্তার- সুযোগ ও সুবিধা গ্রহণ এবং সুনিশ্চিতকরণের বিষয়ে গবেষণা উল্লেখযোগ্য অবদান রাখেছে।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শ্রী তোমার বলেছেন যে ভারতে কৃষি গবেষণা দেশকে খাদ্য আমদানিকারক থেকে রপ্তানিকারক হিসেবে রূপান্তরিত করতে একটি বড় ভূমিকা পালন করেছে।  সমন্বিত গবেষণার প্রয়াস মাটির উৎপাদনশীলতা বৃদ্ধি,জল  সঞ্চয়ের ব্যবস্থাপনা সম্প্রসারণ, দক্ষতার উন্নতির জন্য কৌশল বিকাশে সাহায্য করেছে।  প্রযুক্তিগত অগ্রগতি মানব সভ্যতার সম্মুখীন হওয়া সমস্যাগুলির সমাধানের চাবিকাঠি বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ৩০৮ মিলিয়ন টন খাদ্যশস্যের বার্ষিক উৎপাদনের সঙ্গে, ভারত আজ কেবল খাদ্য নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করার ক্ষেত্রেই নয় বরং অন্যান্য দেশের খাদ্যের চাহিদাও পূরণ করে চলেছে।  বিজ্ঞানীদের দক্ষ গবেষণার ফলে ভারত কৃষি উৎপাদনের ক্ষেত্রে বিপ্লব এনেছে বলেও তিনি জানান।  'তৈলবীজের প্রযুক্তি মিশন' ১০ বছরে তৈলবীজের উৎপাদন দ্বিগুণ করেছে।  নতুন জাতের বীজের সাহায্যে চাষ করায় ভারত সাম্প্রতিক সময়ে ডাল উৎপাদনে ব্যাপক অগ্রগতি লাভ করেছে।  

কৃষিমন্ত্রী ব্যাখ্যা করে জানান  যে ২০৩০-৩১ সালের মধ্যেই ভারতের জনসংখ্যা ১৫০ কোটি ছাড়িয়ে যেতে পারে। তখন দেশে  খাদ্যশস্যের চাহিদা প্রায় ৩৫০ মিলিয়ন টন হতে পারে।  একইভাবে ভোজ্য তেল, দুধ ও দুধজাত দ্রব্য, মাংস, ডিম, মাছ, সব্জি, ফল এবং চিনির চাহিদা উল্লেখযোগ্যভাবে বৃদ্ধি পাবে। কিন্তু এর পাশাপাশি সীমিত প্রাকৃতিক সম্পদ এবং জলবায়ু পরিবর্তনের সমস্যাও রয়েছে।তাই বর্ধিত চাহিদা পূরণের কৌশল উৎপাদনশীলতা এবং কৃষকদের আয় বৃদ্ধির সঙ্গে প্রাসঙ্গিক হতে হবে।একবিংশ শতাব্দীতে জলবায়ু পরিবর্তন রোধ করে খাদ্য নিরাপত্তার লক্ষ্য অর্জনে এগিয়ে যেতে হবে বলেও কৃষি মন্ত্রী জানান।

শ্রী তোমার বলেন, দেশকে স্বনির্ভর করে তোলার জন্য  ভূ-অর্থনীতি, ডিজিটাল কৃষি, জলবায়ু-স্মার্ট প্রযুক্তি ও পদ্ধতি, জলের যথাযথ ব্যবহারের সরঞ্জাম, উচ্চ ফলনশীল ও জৈব-বান্ধব কৃষিকাজের বিকাশ এবং কৃষি গবেষণায় সমন্বিত প্রয়াস অব্যাহত রাখতে হবে।  এ দিনের ভার্চুয়াল বৈঠকে শ্রী তোমার ছাড়াও ভারতীয় প্রতিনিধিদলে কেন্দ্রীয় কৃষি ও কৃষক কল্যাণ মন্ত্রকের একাধিক আধিকারিক উপস্থিত ছিলেন। 

 

CG/SS



(Release ID: 1756151) Visitor Counter : 85