জলশক্তি মন্ত্রক

গঙ্গায় মৃতদেহ ভাসিয়ে দেওয়া আটকাতে এবং মর্যাদার সঙ্গে শেষকৃত্য সম্পন্ন করতে কেন্দ্র রাজ্যগুলিকে নির্দেশ দিয়েছে

Posted On: 16 MAY 2021 5:54PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ১৬  মে, ২০২১

 

কোভিড-১৯ মহামারীর ফলে সংক্রমণ এবং সংক্রমিতদের মৃত্যুর হার বৃদ্ধি পাওয়ায় সম্প্রতি দেশজুড়ে অভূতপূর্ব পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে। গঙ্গা সহ তার উপনদীগুলিতে মৃতদেহ বা আংশিক পোড়ানো দেহ ভাসিয়ে দেওয়ার খবর আসছে। এটি অনভিপ্রেত এবং উদ্বেগজনক।

জলশক্তি মন্ত্রকের সচিব শ্রী পঙ্কজ কুমার পরিস্থিতির পর্যালোচনা করতে ১৫ মে একটি বৈঠক করেন। এই বৈঠকে উত্তরপ্রদেশ এবং বিহারকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে বলা হয়। রাজ্যগুলির পক্ষ থেকে কি কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে বৈঠকে তা নিয়ে আলোচনা হয়। গঙ্গা এবং অন্যান্য নদীগুলি যেসব অঞ্চল দিয়ে প্রবাহিত হয়েছে সেখানকার শহর এবং গ্রামাঞ্চলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে। যুদ্ধকালীন তৎপরতায় মৃতদেহ যাতে জলে ভাসিয়ে দেওয়া না হয়, সেগুলির যথাযথ শেষকৃত্য সম্পন্ন করা এবং জলের গুণমান বজায় রাখার জন্য প্রয়োজনীয় কাজ করতে হবে। শ্রী কুমার জানিয়েছেন রাজ্যগুলির থেকে পরিস্থিতি জানার পর কেন্দ্রীয় জল কমিশন, কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ এবং রাজ্যগুলি দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ এ বিষয়ে কি কি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সে সম্পর্কে জানাবে।

জাতীয় স্বচ্ছ গঙ্গা মিশনের মহানির্দেশক শ্রী রাজীব রঞ্জন মিশ্র জানিয়েছেন উন্নাও, কানপুর গ্রামীণ, গাজিপুর, বালিয়া, বক্সার এবং সারণের মতো বিভিন্ন জেলায় পরিস্থিতি অনুযায়ী ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে। যদিও আরও কয়েকটি জেলা থেকে এ ধরণের খবর পাওয়া গেছে।  প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সব জেলাকে যাতে নির্দেশ দেয়া হয়,  তিনি সে বিষয়ে উদ্যোগী হতে বলেছেন। নদীর তীরে নজরদারি বাড়ানো এবং যে সমস্ত পরিবার শবদেহ দাহ করবে তাদের সাহায্য করতে হবে। প্রয়োজন হলে প্রকল্প আধিকারিক জেলা গঙ্গা কমিটিকে সাহায্য করবে। এর জন্য জাতীয় স্বচ্ছ গঙ্গা মিশনের তহবিলের অর্থ ব্যবহার করা যেতে পারে।

উত্তরপ্রদেশের নগরোন্নয়ন দপ্তরের অতিরিক্ত মুখ্যসচিব শ্রী রজনীশ দুবে, জলশক্তি মন্ত্রকের প্রধান সচিব শ্রী অনুরাগ শ্রীবাস্তব এই বৈঠকে যোগ দেন। শ্রী শ্রীবাস্তব জানিয়েছেন রাজ্যের সব জেলাকে সতর্ক রাখা হয়েছে। জেলাশাসকরা শবদেহ যাতে গঙ্গায় ভাসিয়ে দেওয়া না হয় তার জন্য নজরদারি চালাচ্ছেন। বর্তমান শ্মশানগুলির পাশাপাশি নমামী গঙ্গে প্রকল্পে আরও ১৩টি শ্মশান তৈরি করা হয়েছে। গ্রাম এবং শহরে শেষকৃত্য বাবদ ৫ হাজার টাকা আর্থিক সহায়তা দেওয়ার জন্য উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। রাজ্য বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী নজরদারির কাজে পঞ্চায়েত এবং পুরসভাগুলির সঙ্গে যোগাযোগ রেখে চলেছে।

বিহারের নগরোন্নয়ন মন্ত্রকের প্রধান সচিব এবং রাজ্য গঙ্গা মিশনের প্রকল্প নির্দেশক শ্রী আনন্দ কিশোর জানিয়েছেন কোভিড-১৯এ সংক্রমিতদের মৃত্যু হলে রাজ্য শেষকৃত্যের জন্য ব্যয় বহন করে। এছাড়াও যদি কোনো মৃত ব্যক্তি কোভিড পজিটিভ না হন অথচ জীবিত অবস্থার তার মধ্যে কোভিড উপসর্গ দেখা গিয়েছিল সেক্ষেত্রে তার পরিবারকেও সরকার সাহায্য করবে। বক্সার এবং সারণ (ছাপড়া)-এর মতো স্পর্শকাতর জেলাগুলিতে মৃতদেহ নদীর জলে ভাসিয়ে দেওয়া আটকাতে উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। বক্সারে বিরাট জাল ব্যবহার করে শবদেহ তোলা হচ্ছে। জেলাগুলিতে বিভিন্ন সেতু এবং গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় নজরদারি চালানো হচ্ছে। কেন্দ্রীয় জল কমিশনের চেয়ারম্যান শ্রী এস কে হালদার জানিয়েছেন জলের প্রবাহ এবং গুণমান তাঁরা সবসময় পরীক্ষা করছেন। এক্ষেত্রে ঘন ঘন পরীক্ষা করা হবে। কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের মেম্বার সেক্রেটারি শ্রী প্রশান্ত গর্গভ গঙ্গা এবং তার উপনদীগুলিতে বিভিন্ন নজরদারি কেন্দ্র সম্পর্কে জানিয়েছেন। জাতীয় স্বচ্ছ গঙ্গা মিশনের শ্রী ডি পি মাথুরিয়া কেন্দ্রীয় জল কমিশন ও কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদের সঙ্গে সমন্বয় বজায় রেখে বিভিন্ন উদ্যোগের কথা জানিয়েছেন।

জলশক্তি মন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব শ্রীমতি দেবশ্রী মুখোপাধ্যায় জানিয়েছেন নদী তীরবর্তী অঞ্চলে বসবাসরত মানুষদের মধ্যে ঝুঁকি দেখা দেওয়ায় তাদের কি কি করা উচিত এবং কি করা উচিত নয় সে বিষয়ে সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। জলের মধ্যে যাতে দেহ ভাসিয়ে দেওয়া না হয় তার জন্য উদ্যোগী হতে হবে।

এ পর্যন্ত যা যা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে সেগুলির পাশাপাশি নদীর তীরে শবদেহ পুঁতে রাখা বা বালির তলায় চাপা দেওয়া আটকাতে হবে। এর জন্য প্রয়োজনীয় সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। স্বাস্থ্য দপ্তরের সঙ্গে সহযোগিতায় জলের গুণমান পরীক্ষা করার ক্ষেত্রে রাজ্য দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদগুলিকে উপযুক্ত ব্যবস্থা নিতে বলা হয়েছে। কেন্দ্রীয় দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ পুরো প্রক্রিয়ার নজরদারি চালাবে। সুরক্ষার সঙ্গে মর্যাদাপূর্ণভাবে শেষকৃত্য সম্পন্ন করার ওপর সবথেকে বেশি গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। এর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। সরকারের নির্দেশগুলি যথাযথ পালন করার জন্য দ্রুত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে হবে।

এ সপ্তাহের শুরুতে জাতীয় স্বচ্ছ গঙ্গা মিশন এবং জলশক্তি মন্ত্রক প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য জেলা প্রশাসন ও রাজ্য সরকারগুলিকে উদ্যোগী হতে বলেছে। এই মর্মে ১১ই মে জাতীয় স্বচ্ছ গঙ্গা মিশনের মহানির্দেশক জেলাশাসকদের (যাঁরা পদাধিকার বলে জেলা গঙ্গা কমিটির চেয়ারপার্সন) একটি চিঠি পাঠিয়েছেন। এরপর ১২ই মে রাজ্যগুলির মুখ্য সচিবদেরও আর একটি চিঠি পাঠানো হয়। এই চিঠিগুলিতে কোভিড-১৯এ সংক্রমিত ব্যক্তিদের মৃত্যু হলে যাতে মৃতদেহ জলে ভাসিয়ে দেওয়া না হয় এবং সরকারি নীতি-নির্দেশিকা মেনে শেষকৃত্য সম্পন্ন করা হয় তা নিশ্চিত করতে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে। চিঠিতে শেষকৃত্য সম্পন্ন করার জন্য  আর্থিক সাহায্যের পাশাপাশি শেষকৃত্যের জন্য প্রয়োজনীয় সামগ্রীর মূল্য নিয়ন্ত্রণেরও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

 


CG/CB /NS



(Release ID: 1719199) Visitor Counter : 99