তথ্যওসম্প্রচারমন্ত্রক

চলচ্চিত্রের আনন্দকে উপভোগ করতে মনমুগ্ধ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে ৫১তম ভারতের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব শুরু হয়েছে

Posted On: 16 JAN 2021 5:38PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ১৬ই জানুয়ারী, ২০২১

চলচ্চিত্রের আনন্দকে উপভোগ করতে মনমুগ্ধ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে দীর্ঘ প্রতীক্ষিত ৫১তম ভারতের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব শুরু হয়েছে। গোয়ার পানাজিতে ড. শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় ইন্ডোর স্টেডিয়ামে দেশ – বিদেশের চলচ্চিত্র অভিনেতা, পরিচালক ও সিনেমা প্রেমীদের উপস্থিতিতে আজ এই উৎসব শুরু হয়েছে।

অভিনেতা, লেখক এবং চলচ্চিত্র প্রযোজক টিস্কা চোপড়া, এশিয়ার প্রাচীনতম এবং ভারতের বৃহত্তম চলচ্চিত্র উৎসবের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের সূচনা করেছেন। এই অনুষ্ঠানে চলচ্চিত্র পরিচালক প্রিয়দর্শন নায়ার, বিখ্যাত অভিনেতা সুদীপ, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী শ্রী প্রকাশ জাভড়েকর, গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী শ্রী প্রমোদ সাওয়ান্ত সহ বিশিষ্ট ব্যক্তিরা এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে শ্রী সুদীপ, যিনি কিছা সুদীপ হিসেবে পরিচিত, বলেছেন, চলচ্চিত্র নতুন মহামারী হিসেবে হাজির হোক। চলচ্চিত্র হল, সৌভ্রাতৃত্বের প্রতীক, যার সাহায্যে মানুষ বিশ্বের সব সংস্কৃতি সম্পর্কে পরিচিত হতে পারে।

তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী শ্রী প্রকাশ জাভড়েকর বলেছেন, এবছরের এই উৎসবে ৬০০টি বিদেশী চলচ্চিত্র এবং ১৯০টি ভারতীয় চলচ্চিত্র প্রদর্শিত হওয়ার জন্য প্রস্তাব এসেছিল। এর মাধ্যমে এই উৎসবের গুরুত্ব প্রতিফলিত হয়েছে। শ্রী জাভড়েকর ঘোষণা করেছেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে ভারত এবং বাংলাদেশ যৌথভাবে তাঁকে নিয়ে একটি চলচ্চিত্র নির্মাণ করছে।

প্রবীণ অভিনেতা ও নির্দেশক শ্রী বিশ্বজিৎ চট্টোপাধ্যায়কে এবছরের “ইন্ডিয়ান পার্সোনালিটি অফ দ্য ইয়ার” পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে বলে তিনি ঘোষণা করেছেন। তিনি বলেছেন, ভারতে অনেক জায়গায় সিনেমার শ্যুটিং করার সুযোগ রয়েছে। তাই “শ্যুট ইন ইন্ডিয়া”–কে উৎসাহিত করার জন্য তিনি অভিমত প্রকাশ করেছেন।

চলচ্চিত্রের বাজারের প্রসঙ্গ উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেছেন, চলচ্চিত্র শুধু বিনোদনের উৎসই নয়, এটি বড় বাজারও। ৫১তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবে ৭টি স্ক্রীনে ছবি দেখানে হবে, যা লক্ষ লক্ষ মোবাইল এবং টিভির মাধ্যমে সারা পৃথিবীর দর্শক দেখতে পাবেন। গোয়ার মুখ্যমন্ত্রী শ্রী সাওয়ান্ত দেশি – বিদেশী চলচ্চিত্র নির্মাতাদের গোয়ায় শ্যুটিং করার আহ্বান জানিয়েছেন।

ভারতে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার শ্রী মহম্মাদ ইমরান এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন। বাংলাদেশ, এবছরের উৎসবের ফোকাস কান্ট্রি। বাংলাদেশের চলচ্চিত্র নির্মাতাদের সৃজনশীলতা ও উৎকর্ষকে স্বীকৃতি দিয়ে দুটি দেশের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্ককে এই উৎসবে মান্যতা দেওয়া হয়েছে। বাংলাদেশের হাইকমিশনার বলেছেন, সঙ্কটের এই সময়ে কেন্দ্রের তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রক, যেভাবে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে, তার জন্য তিনি তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছেন। চলচ্চিত্র জগতে বাংলাদেশের অবদানের স্বীকৃতি হিসেবে সে দেশের ১০টি ভালো ছবি দেখানো হবে।

এই চলচ্চিত্র উৎসবে ইটালির সিনেমাটোগ্রাফার মি. ভিত্তরিও স্তোরারো-কে লাইফ টাইম অ্যাচিভমেন্ট পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে। মি. স্তোরারো এরজন্য ভারতের আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন। আর্জেন্টিনার চলচ্চিত্র পরিচালক, আন্তর্জাতিক জুরির চেয়ারম্যান মি. পাবলো সিজার এক ভিডিও বার্তায় বলেছেন, ভারত হল একটি বৈচিত্রময় জগৎ, এদেশে সবকিছুই করা সম্ভব। আমরা প্রতিদিন ভারতের জন্য স্বপ্ন দেখি। এনএফডিসি –র ১৪তম ফিল্ম বাজারেরও আজ ভার্চুয়ালী উদ্বোধন করেছেন শ্রী জাভড়েকর। এটি দক্ষিণ এশিয়ার সবথেকে বড় চলচ্চিত্র বাজার।

ডেনমার্কের ঠোমাস ভিন্টারবার্গ এর ছবি “এ্যানাদার রাউন্ড” প্রদর্শনীর মধ্য দিয়ে চলচ্চিত্র উৎসবের সূচনা হয়েছে। বিশ্ববরেণ্য চলচ্চিত্র পরিচালক, সত্যজিৎ রায়ের জনপ্রিয় ছবি পথের পাঁচালি, শতরঞ্জ কি খিলাড়ি, চারুলতা, ঘরে-বাইরে এবং সোনার কেল্লা – এই উৎসবে প্রদর্শিত হবে। ভারতীয় চলচ্চিত্রের জনক, দাদা সাহেব ফালকের সার্ধশততম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষ্যে তাঁর চারটি ফিল্ম দেখানো হবে। গত বছর যে ১৮জন চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব প্রয়াত হয়েছেন, তাঁদের সম্মানে উৎসবে বিশেষ আয়োজন করা হয়েছে। এঁদের মধ্য আছেন, সৌমিত্র চট্টোপাধ্যায়, বাসু চট্টোপাধ্যায়, ইরফান খান, ঋষি কাপুর, এস পি বালাসুহ্মমনিয়াম এবং সুশান্ত সিং রাজপুত।

চলচ্চিত্র উৎসবে ওয়াল্ড প্রিমিয়ার বিভাগে সন্দীপ কুমারের মেহেরুননেসা এবং কিওশি কুরোসাওয়ার জাপানী ছবি ওয়াইস অফ এ স্পাই দেখানো হবে। মহাত্মা গান্ধীর শান্তি, সহিষ্ণুতা ও অহিংসার ভাবনার প্রতিফলনের জন্য আইসিএফটি – ইউনেস্কোর গান্ধী পদক প্রতিযোগিতায় ১০টি চলচ্চিত্র দেখানো হবে।

কোভিড মহামারীর কারণে বলিউডের অনেক চলচ্চিত্র ব্যক্তিত্ব শারীরিকভাবে এই উৎসবে উপস্থিত হতে পারছেন না, কিন্তু তাঁরা উৎসবের সাফল্য কামনা করে ভিডিও বার্তা পাঠিয়েছেন।

স্বাগত ভাষণে তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রকের অতিরিক্ত সচিব শ্রীমতী নীর্জা শেখর বলেছেন, দেশের চলচ্চিত্র শিল্পকে উৎসাহিত করতে সরকার অঙ্গীকারবদ্ধ। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে গোয়ার পল্লি সংস্কৃতি ও সঙ্গীতের নিদর্শন তুলে ধরা হয়।

***

 

CG/CB/SFS



(Release ID: 1689206) Visitor Counter : 435