অর্থমন্ত্রক

স্টার্ট আপ ইন্ডিয়া কর্মসূচির আওতায় মহিলা অ্যাকাউন্টধারী ৮১ শতাংশের বেশি


মুদ্রা : ঋণ গ্রহীতার ৭০ শতাংশ মহিলা

পিএমজেডিওয়াই : ৩৮ কোটি ১৩ লক্ষ সুফলভোগীর মধ্যে ২০ কোটি ৩৩ লক্ষ মহিলা

এপিওয়াই : ২ কোটি ১৫ লক্ষ সুফলভোগীর মধ্যে ৯৩ লক্ষের (৪৩ শতাংশ) বেশি মহিলা

পিএমজেজেবিওয়াই এবং পিএমএসবিওয়াই কর্মসূচিতে নথিভুক্ত ৪০ শতাংশের বেশি মহিলা

Posted On: 03 MAR 2020 1:40PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ০৩ মার্চ, ২০২০

 

 

     কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রক বিগত ছয় বছরে মহিলাদের ক্ষমতায়ণের জন্য একাধিক কর্মসূচির সূচনা করেছে। এই কর্মসূচিগুলি একদিকে মহিলাদের যেমন আর্থিক দিক থেকে সাবলম্বী করে তুলেছে, অন্যদিকে তেমনই তাদের শিল্পদ্যোগী হয়ে ওঠার স্বপ্ন এবং উন্নত জীবনযাপন সুনিশ্চিত করেছে।

     আমরা ৮ই মার্চ আর্ন্তজাতিক নারী দিবস উদযাপন করতে চলেছি। দেশে মহিলাদের কল্যাণে অর্থমন্ত্রকের গৃহিত কর্মসূচিগুলি এক ঝলকে দেখে নেওয়া যাক।

স্ট্যান্ড-আপ ইন্ডিয়া কর্মসূচি-  তৃণমূল স্তরে আর্থিক ক্ষমতায়ণ ও কর্মসংস্হানের জন্য শিল্পোদ্যোগের প্রসারে ২০১৬র ৫ই এপ্রিল স্ট্যান্ড-আপ ইন্ডিয়া কর্মসূচির সূচনা হয়। এই কর্মসূচিতে তপশিলি জাতি ও উপজাতিভুক্ত ব্যক্তি এবং মহিলা শিল্পোদ্যোগীদের প্রাতিষ্ঠানিক ঋণ সুবিধা দেওয়া হয়ে থাকে দেশের আর্থিক বিকাশে এদের সকলকে সামিল করাই এর উদ্দেশ্য

গ্রীন ফিল্ড এন্টারপ্রাইজ বা পরিবেশ বান্ধব শিল্প স্হাপনের জন্য তফশিলভুক্ত বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলির প্রতিটি শাখা থেকে তপশিলি জাতির বা উপজাতির অন্ততপক্ষে একজন করে এবং একজন মহিলাকে ১০ লক্ষ টাকা থেকে ১ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে এই কর্মসূচির সূচনা হয়।

স্ট্যান্ডআপ ইন্ডিয়া কর্মসূচির আওতায় ১৭ই ফেব্রুয়ারি ২০২০ পর্যন্ত মোট অ্যাকাউন্টধারীর ৮১ শতাংশের বেশি মহিলাকেবল মহিলাদের জন্যই ৭৩ হাজার ১৫৫টি অ্যাকাউন্ট খোলা হয়েছে। মহিলা অ্যাকাউন্টধারীদের জন্য ১৬ হাজার্ ৭১২ কোটি ৭২ লক্ষ টাকা মঞ্জুর এবং ৯ হাজার ১০৬ কোটি ১৩ লক্ষ টাকা বন্টন করা হয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনা (পিএমএমওয়াই)-  নন কর্পোরেট, নন ফার্ম স্মল বা মাইক্রো শিল্পসংস্হাগুলিকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ সুবিধা দেওয়ার জন্য ২০১৫র ৮ই এপ্রিল এই কর্মসূচির সূচনা হয়। কর্মসূচির আওতায় প্রদেয় আর্থিক সুবিধাকে মুদ্রা ঋণ হিসেবে গণ্য করা হয়। বাণিজ্যিক ব্যাঙ্ক, আঞ্চলিক গ্রামীণ ব্যাঙ্ক, অর্থ সহায়তা ব্যাঙ্ক এবং ব্যাঙ্ক বর্হিভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠানগুলি ঋণ সহায়তা দিয়ে থাকে।

প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনার আওতায় তিনটি ভাগ রয়েছে। এগুলি হল- শিশু, কিশোর এবং তরুণমুদ্রা কর্মসূচির উদ্দেশ্য হল, সুসংবদ্ধ আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য বিশ্বের শ্রেষ্ঠ পদ্ধতি অবলম্বন করে ও গুনমান বজায় রেখে নিরবচ্ছিন্নভাবে আর্থিক ও সহায়ক পরিষেবা প্রদান করা।

এই কর্মসূচির আওতায় ২০২০র ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত মোট ঋণ গ্রহীতার ৭০ শতাংশই মহিলা।

প্রধানমন্ত্রী জনধন যোজনা (পিএমজেডিওয়াই)- ২০১৪ সালের ২৮ আগস্ট এই কর্মসূচির সূচনা হয়। উদ্দেশ্য হল, প্রাপ্তবয়স্ক প্রত্যেকের জন্য অন্তত একটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা, আর্থিক লেনদেন সম্পর্কে বিচক্ষণ করে তোলা, ঋণ সুবিধা পাওয়া, বিমা ও পেনশন সুবিধা পৌঁছে দেওয়া। ২০১৮র ১৪ই আগস্ট এই কর্মসূচি সম্প্রসারণ ও সংশোধন করা হয়েছে।

২০২০র ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই কর্মসূচির মোট সুফলভোগীর ৩৮ কোটি ১৩ লক্ষের মধ্যে ৫৩ শতাংশ বা ২০ কোটি ৩৩ লক্ষই মহিলা।

 

অর্থমন্ত্রকের বিভিন্ন প্রকল্প যেগুলি থেকে মহিলারা লাভবান হয়েছেন

 

স্ট্যান্ড –আপ ইন্ডিয়া

 

  • তৃণমূল স্তরে আর্থিক ক্ষমতায়ণ ও কর্মসংস্হানের জন্য শিল্পোদ্যোগের প্রসার
  • গ্রীন ফিল্ড এন্টারপ্রাইজ বা পরিবেশ বান্ধব শিল্প স্হাপনের জন্য তফশিলভুক্ত বাণিজ্যিক ব্যাঙ্কগুলির প্রতিটি শাখা থেকে তপশিলি জাতির বা উপজাতির অন্ততপক্ষে একজন করে এবং একজন মহিলাকে ১০ লক্ষ টাকা থেকে ১ কোটি টাকা পর্যন্ত ঋণ সহায়তা দেওয়ার লক্ষ্যে এই কর্মসূচির সূচনা হয়।
  • মোট অ্যাকাউন্টধারীর ৮১ শতাংশের বেশি মহিলা

 

পিএমজেডিওয়াই

  • প্রাপ্তবয়স্ক প্রত্যেকের জন্য অন্তত একটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট খোলা, আর্থিক লেনদেন সম্পর্কে বিচক্ষণ করে তোলা, ঋণ সুবিধা পাওয়া, বিমা ও পেনশন সুবিধা পৌঁছে দিতে ২০১৮র ১৪ আগস্ট এই কর্মসূচি সম্প্রসারণ ও সংশোধন করা হয়েছে।
  • ২০২০র ১৯ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত এই কর্মসূচির মোট সুফলভোগীর ৩৮ কোটি ১৩ লক্ষের মধ্যে ৫৩ শতাংশ বা ২০ কোটি ৩৩ লক্ষই মহিলা

 

মুদ্রা

  • নন কর্পোরেট, নন ফার্ম স্মল বা মাইক্রো শিল্পসংস্হাগুলিকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত ঋণ সুবিধা দেওয়া
  • প্রধানমন্ত্রী মুদ্রা যোজনার আওতায় তিনটি অংশ রয়েছে। এগুলি হল- শিশু, কিশোর এবং তরুণ। মুদ্রা কর্মসূচির উদ্দেশ্য হল, সুসংবদ্ধ আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য বিশ্বের সেরা পন্হা-পদ্ধতি ও মান বজায় রেখে নিরবচ্ছিন্নভাবে আর্থিক ও সহায়ক পরিষেবা প্রদান করা
  • এই কর্মসূচির আওতায় ২০২০র ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত মোট ঋণ গ্রহীতার ৭০ শতাংশই মহিলা

 

অটল পেনশন যোজনা (এপিওয়াই)- ২০১৫ সালের ৯ই মে এই কর্মসূচির সূচনা হয়। উদ্দেশ্য হল, সর্বজনীন সামাজিক সুরক্ষা ব্যবস্হার জন্য ৬০ বছর বয়স পূর্ণ করলে সমস্ত ভারতীয়কে বিশেষ করে দরিদ্র ও আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া মানুষকে ন্যূনতম মাসিক ১ হাজার টাকা থেকে ৫ হাজার টাকা পেনশন দেওয়া।

ব্যাঙ্ক এবং ডাকঘরের মাধ্যমে এই কর্মসূচির গ্রাহক হওয়া যায়। ২০২০র ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কর্মসূচির আওতায় গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ২ কোটি ১৫ লক্ষ। এরমধ্যে ৯৩ লক্ষ (৪৩ শতাংশ) মহিলা।

মহিলাদের মধ্যে বৃদ্ধাবস্হায় নিশ্চিত উপার্জনের লক্ষ্যে এই কর্মসূচিতে সামিল হওয়ার প্রবনতা ক্রমশ বাড়ছে। ২০১৬র ডিসেম্বরে কর্মসূচিতে মহিলাদের সামিল হওয়ার হার ৩৭ শতাংশ থেকে বেড়ে ২০২০র ফেব্রুয়ারিতে ৪৩ শতাংশে পৌঁছেছে। কায়িক শ্রমদানের ক্ষেত্রে অংশগ্রহণের হার কম এবং লিঙ্গগত মজুরি ফারাক থাকা সত্ত্বেও মহিলারা বৃদ্ধাবস্হায় পুরুষদের চেয়ে নিশ্চিত উপার্জনের দিক থেকে এগিয়ে রয়েছেন। বৃদ্ধাবস্হায় নিশ্চিত উপার্জনের দিক থেকে পুরুষদের তুলনায় মহিলারা সিকিমে (৭৩ শতাংশ), তামিলনাড়ু (৫৬ শতাংশ), কেরালা (৫৬শতাংশ), অন্ধ্রপ্রদেশ (৫৫শতাংশ), পন্ডিচেরি (৫৪শতাংশ), মেঘালয় (৫৪শতাংশ), ঝাড়খন্ড (৫৪শতাংশ) এবং বিহারে (৫২শতাংশ) এগিয়ে রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বিমা যোজনা (পিএমজেজেবিওয়াই)- ২০১৫র ৯ই মে এই কর্মসূচির সূচনা হয়। এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য হল, ১৮-৫০ বছর বয়সী দরিদ্র ও মৌলিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত ব্যক্তিদের কল্যাণে ৩৩০ টাকার প্রিমিয়ামের বিনিময়ে ২ লক্ষ টাকার পুর্ননবীকরণযোগ্য জীবন বিমার সুবিধা প্রদান করে।

এই কর্মসূচির আওতায় মহিলা সুফলভোগী ৪০.৭০ শতাংশ এবং মোট দাবিদাওয়ার ৫৮.২১ শতাংশ মহিলারা পেয়েছেন। (২০২০র ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত হিসেবে)

এই কর্মসূচির আওতায় মোট সুফলভোগী ৪ কোটি ৭১ লক্ষ ৭১ হাজার ৫৬৮ জনের মধ্যে ১ কোটি ৯১ লক্ষ ৯৬ হাজার ৮০৫ জন মহিলা। মোট ১ লক্ষ ৬৯ হাজার ২১৬টি দাবিদাওয়ার মধ্যে মহিলারা ৯৫ হাজার ৫০৮টি ক্ষেত্রে লাভবান হয়েছেন (২০২০র ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত হিসেবে)

প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বিমা যোজনা (পিএমএসবিওয়াই)- ২০১৫র ৯ই মে এই কর্মসূচির সূচনা হয়। এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য হল, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সহ ১৮ থেকে ৭০ বছর বয়সী দরিদ্র ও মৌলিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত মানুষকে বার্ষিক ১২ টাকা প্রিমিয়ামের বিনিময়ে সুলভে বিমার সুবিধা প্রদান করা। এই কর্মসূচিতে দুর্ঘটনা জনিত মৃত্যু এবং পুরোপুরি অক্ষম হয়ে গেলে ২ লক্ষ টাকার বিমা সুবিধা এবং আংশিক অক্ষম হলে ১ লক্ষ টাকার বিমা সুবিধা রয়েছে।

প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বিমা যোজনার আওতায় মহিলা সুফলভোগী ৪১.৫০ শতাংশ। প্রদেয় দাবিদাওয়ার ৬১.২৯ শতাংশই পেয়েছেন মহিলারা (২০২০র ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত হিসেবে)

এই কর্মসূচিতে মোট ১৫ কোটি ১২ লক্ষ ৫৪ হাজার ৬৭৮ জন সুফলভোগীর মধ্যে ৬ কোটি ২৭ লক্ষ ৭৬ হাজার ২৮২ জন মহিলা। প্রদেয় ৩৮ হাজার ৯৮৮টি দাবিদাওয়ার মধ্যে ২৩ হাজার ৮৯৪টি ক্ষেত্রে মহিলারা উপকৃত হয়েছেন। (২০২০র ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত হিসেবে)

 

অর্থমন্ত্রকের বিভিন্ন প্রকল্প সমূহ, যেগুলি থেকে মহিলারা লাভবান হয়েছেন

 

অটল পেনশন যোজনা (এপিওয়াই)

  • সর্বজনীন সামাজিক সুরক্ষা ব্যবস্হার জন্য ৬০ বছর বয়স পূর্ণ করলে সমস্ত ভারতীয়কে বিশেষ করে দরিদ্র ও আর্থিক দিক থেকে পিছিয়ে পড়া মানুষকে ন্যূনতম মাসিক ১ হাজার টাকা থেকে ৫ হাজার টাকা পেনশন দেওয়া।
  • ২০২০র ২২ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত কর্মসূচির আওতায় গ্রাহক সংখ্যা প্রায় ২ কোটি ১৫ লক্ষ। এরমধ্যে ৯৩ লক্ষ (৪৩ শতাংশ) মহিলা।
  • ২০১৬র ডিসেম্বরে কর্মসূচিতে মহিলাদের সামিল হওয়ার হার ৩৭ শতাংশ থেকে বেড়ে ২০২০র ফেব্রুয়ারিতে ৪৩ শতাংশে পৌঁছেছে।

 

প্রধানমন্ত্রী জীবন জ্যোতি বিমা যোজনা (পিএমজেজেবিওয়াই)

  • এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য হল, ১৮-৫০ বছর বয়সী দরিদ্র ও মৌলিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত ব্যক্তিদের কল্যাণে ৩৩০ টাকার প্রিমিয়ামের বিনিময়ে ২ লক্ষ টাকার পুর্ননবীকরণযোগ্য জীবন বিমার সুবিধা প্রদান করা।
  • এই কর্মসূচির আওতায় মহিলা সুফলভোগী ৪০.৭০ শতাংশ এবং মোট দাবিদাওয়ার ৫৮.২১ শতাংশ মহিলারা পেয়েছেন(২০২০র ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত হিসেবে)

 

প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বিমা যোজনা (পিএমএসবিওয়াই)

  • এই কর্মসূচির উদ্দেশ্য হল, ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সহ ১৮ থেকে ৭০ বছর বয়সী দরিদ্র ও মৌলিক সুযোগ-সুবিধা থেকে বঞ্চিত মানুষকে বার্ষিক ১২ টাকা প্রিমিয়ামের বিনিময়ে সুলভে বিমার সুবিধা প্রদান করাএই কর্মসূচিতে দুর্ঘটনা জনিত মৃত্যু এবং পুরোপুরি অক্ষম হয়ে গেলে ২ লক্ষ টাকার বিমা সুবিধা এবং আংশিক অক্ষম হলে ১ লক্ষ টাকার বিমা সুবিধা রয়েছে।
  • প্রধানমন্ত্রী সুরক্ষা বিমা যোজনার আওতায় মহিলা সুফলভোগী ৪১.৫০ শতাংশ। প্রদেয় দাবিদাওয়ার ৬১.২৯ শতাংশই পেয়েছেন মহিলারা (২০২০র ৩১ জানুয়ারি পর্যন্ত হিসেবে)।

 

 

CG/BD/NS



(Release ID: 1604945) Visitor Counter : 179


Read this release in: English