সংস্কৃতিমন্ত্রক

সংস্কৃতি মন্ত্রকের ২০১৯-এর বর্ষশেষ পর্যালোচনা

Posted On: 08 JAN 2020 11:08PM by PIB Kolkata

ভারতীয় সংস্কৃতি এবং তার সমৃদ্ধশালী শিল্পকলার সংরক্ষণ ও বিকাশে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক বদ্ধপরিকর। মন্ত্রক এবং তার স্বশাসিত সংস্থাগুলি বছরভর এই ক্ষেত্রে নানা কাজ করে চলেছে। মহাত্মা গান্ধীর সার্ধশত জন্মবার্ষিকী, কুম্ভ মেলায় ২৯ দিনব্যাপী সংস্কৃতি কুম্ভ মেলা, দশম রাষ্ট্রীয় সংস্কৃতি মহোৎসব, আজাদ হিন্দ সরকার গঠনের ৭৬ বছর উদযাপন, মহারাষ্ট্রের মারকণ্ডেশ্বর মন্দিরের ঐতিহ্যশালী স্থাপত্যকলা সংরক্ষণ এবং ‘এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারত’-এর মতো বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান আয়োজন করেছে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক।

গত বছর ১০ই জানুয়ারি থেকে ২৯ দিনব্যাপী প্রয়াগরাজে কুম্ভ মেলার আয়োজন করা হয়েছিল। এই মেলায় মন্ত্রক ভারতীয় সংস্কৃতি, ঐতিহ্যকে তুলে ধরেছিল। একইসঙ্গে, শিল্পকলা ও সংস্কৃতি, আদিবাসী এবং ধ্রুপদী শিল্পশৈলী, হস্তশিল্প এবং প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছিল। এই সংস্কৃতি কুম্ভ মেলায় রাষ্ট্রীয় শিল্প মেলারও আয়োজন করা হয়েছিল। এই শিল্প মেলায় দেশের বিভিন্ন প্রান্তের হস্তশিল্পকে তুলে ধরা হয়েছিল। পাশাপাশি, প্রয়াগরাজে প্রবাসী ভারতীয় দিবসের আয়োজন করা হয়েছিল।

প্রধানমন্ত্রী সারা বছর যে উপহার পেয়েছিলেন, সেগুলিকে নিয়ে দু’দফায় নিলামের আয়োজন করা হয়েছিল। কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের অন্তর্গত নতুন দিল্লির ন্যাশনাল গ্যালারি অফ মর্ডার্ন আর্ট গত বছর ২৮শে জানুয়ারি এই নিলামের আয়োজন করেছিল। ২৯-৩১শে জানুয়ারি পর্যন্ত ই-নিলামেরও আয়োজন করা হয়েছিল। দ্বিতীয় দফায় ১৪ই সেপ্টেম্বর থেকে ৩ অক্টোবর পর্যন্ত এই নিলামের আয়োজন করা হয়েছিল। ৫৭৬টি শাল, ৯৬৪টি অঙ্গবস্ত্র, ৮৮টি পাগড়ি, একাধিক জ্যাকেট সহ বিভিন্ন উপহার এই নিলামে তোলা হয়েছিল।

গত বছর ৩০শে জানুয়ারি নয়ডায় জাতীয় যাদুঘরের নতুন ক্যাম্পাসের উদ্বোধন করা হয়।

গত বছর দোসরা ফেব্রুয়ারি কুম্ভ মেলায় ৫ টাকা মূল্যের বিশেষ ডাক টিকিটও প্রকাশ করা হয়। কেন্দ্রীয় রেল এবং যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী শ্রী মনোজ সিনহা এই ডাক টিকিট প্রকাশ করেন।

কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের অন্তর্গত ন্যাশনাল স্কুল অফ ড্রামা গত বছর ২০তম ‘ভারত রং মহোৎসব’ – ভারতের আন্তর্জাতিক নাট্যোৎসবের আয়োজন করেছিল। ১১১টি জাতীয় এবং আন্তর্জাতিক নাটকের দল এই নাট্য উৎসবে অংশ নিয়েছিল।

রাষ্ট্রপতি শ্রী রামনাথ কোবিন্দ গত বছর ৬ই ফেব্রুয়ারি রাষ্ট্রপতি ভবনে ২০১৭ সালের জন্য সঙ্গীত নাটক অ্যাকাডেমি পুরস্কার প্রদান করেছিলেন।

গত বছর ১৪ই ফেব্রুয়ারি তাজমহল এবং আগ্রা ফোর্টের মধ্যে তাজ করিডর এলাকায় তাজ ভিউ গার্ডেনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করা হয়।

কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের অন্তর্গত ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ সায়েন্স মিউজিয়াম বারাণসীর দশাশ্বমেধ ঘাটের কাছে ‘মন-মহল’-এ ভার্চ্যুয়াল এক্সপেরিমেন্টাল মিউজিয়াম (ভিইএম)-এর উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী।

গত বছর চৌঠা মার্চ দিল্লির লালকেল্লায় ‘আজাদি কি দিওয়ানে’ সংগ্রহশালার উদ্বোধন করা হয়েছে। ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক সর্বেক্ষণ দপ্তর লালকেল্লা অঞ্চলে এই সংগ্রহশালা নির্মাণ করেছে। ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের অনুচ্চারিত নায়ক যাঁদের অবদান অনস্বীকার্য, তাঁদের কীর্তি এই সংগ্রহশালায় তুলে ধরা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের অন্তর্গত ন্যাশনাল কাউন্সিল অফ সায়েন্স মিউজিয়াম গুগল আর্ট অ্যান্ড কালচারের সঙ্গে সহযোগিতায় ‘ওয়ান্স আপন এ ট্রাই’ শীর্ষক অনলাইন প্রদর্শনীর আয়োজন করেছে। ভারতের শিল্প ও সংস্কৃতি ক্ষেত্রে এখনও পর্যন্ত যা অনুসন্ধান এবং আবিষ্কৃত হয়েছে সে সম্পর্কেই এই অনলাইন প্রদর্শনী। গত বছর ৭ই মার্চ এই অনলাইন প্রদর্শনীর উদ্বোধন হয়।

১৮৫৭ সালে থেকে ১৯৪৭ সাল পর্যন্ত ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামের বীর শহীদ যোদ্ধাদের নিয়ে একটি অভিধান গত বছর ৭ই মার্চ প্রকাশ করা হয়। প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী এই অভিধানের উদ্বোধন করেন। পাঁচ খণ্ডে প্রকাশিত এই অভিধানে ভারতের স্বাধীনতা সংগ্রামে প্রথম শহীদ থেকে ১৯৪৭ সালের স্বাধীনতা লাভ পর্যন্ত শহীদদের বীরগাথা তুলে ধরা হয়েছে।

গত বছর ৯ই মার্চ উত্তরপ্রদেশের গ্রেটার নয়ডায় পণ্ডিত দীনদয়াল উপাধ্যায় ইনস্টিটিউট অফ আর্কিওলজির নতুন ভবনের উদ্বোধন করেন প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী। একইসঙ্গে, পণ্ডিত দীনদয়াল উপাধ্যায়ের মূর্তিরও উদ্বোধন করেন তিনি। দেশীয় প্রযুক্তিতে ২৮৯ কোটি টাকা ব্যয়ে এই প্রতিষ্ঠানটি গড়ে তোলা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক অমরনাথ যাত্রার অনুষ্ঠানের জন্য বালতালে ১০৩.৭ মেগাহার্টজ ট্রান্সমিটার এফএম রেডিও স্থাপন করেছে। আকাশবাণী নিয়মিত ভিত্তিতে এই রেডিও ট্রান্সমিটারের মাধ্যমে আবহাওয়া, স্বাস্থ্য, অন্যান্য সতর্কতা, ধর্মীয় সঙ্গীত পরিবেশন করে থাকে।

জয়পুরের পিঙ্ক সিটি ভারতের ৩৮তম ইউনেস্কো ওয়ার্ল্ড হেরিটেজ সাইট হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে। নতুন দিল্লির ঐতিহাসিক সফদরজং কবরস্থানকে পর্যটকদের কাছে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে অত্যাধুনিক এলইডি আলো দিয়ে সাজানো হয়েছে। সংস্কৃতি মন্ত্রকের সিনিয়র ও জুনিয়র ফেলোশিপ প্রকল্পের জন্য নেপালি এবং সাঁওতালি ভাষাকেও অন্তর্ভুক্ত করা হয়েছে। এই খাতে আর্থিক অনুদানও দেওয়া হয়েছে মন্ত্রকের পক্ষ থেকে। দিল্লিবাসী বিশেষ করে, দিল্লির বস্তি ও পুনর্বাসন কলোনিতে বসবাসকারী মানুষদের হাতে বই তুলে দিতে ‘ঘর ঘর দস্তক, ঘর ঘর পুস্তক’। ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক সর্বেক্ষণ বিভাগ মহারাষ্ট্রের ফুপগাঁও-এ লৌহ যুগের বিভিন্ন প্রত্নতাত্ত্বিক সন্ধান পেয়েছে।

মহাত্মা গান্ধীর সার্ধশত জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে ভারতের জাতীয় মহাফেজখানা অক্সফোর্ড ইউনিভার্সিটি প্রেসের সহযোগিতায় ১৯৪৩-৪৪ সাল পর্যন্ত মনু গান্ধীর লেখা ‘দ্য ডায়েরি অফ মনু গান্ধী’ প্রকাশ করেছে।

তাজমহল চত্বরে জল সংরক্ষণ এবং শিশুদের যত্ন ও স্তন্যদানের জন্য আলাদা ঘরের উদ্বোধন করা হয়েছে। কুতুব মিনারকে পর্যটকদের কাছে আরও আকর্ষণীয় করে তুলতে কুতুব মিনারকে এলইডি আলো দিয়ে সাজানো হয়েছে। সমগ্র লাদাখ অঞ্চলের জন্য লেহ-তে এই প্রথম ভ্রাম্যমান বিজ্ঞান প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়েছিল। গত বছর ৫ই সেপ্টেম্বর কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি ও পর্যটন দপ্তরের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী শ্রী প্রহ্লাদ সিং প্যাটেল এই ভ্রাম্যমান বিজ্ঞান প্রদর্শনীর উদ্বোধন করেন। তিনি ব্রাজিলে আয়োজিত ব্রিক্‌স গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির সংস্কৃতি মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকেও যোগ দিয়েছিলেন। কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ব্রিক্‌স সাহিত্য উৎসবে ব্রিক্‌স গোষ্ঠীভুক্ত দেশগুলির বিখ্যাত লেখকদের সাহিত্য বিষয়ক কর্মকাণ্ডকে আরও তুলে ধরার আহ্বান জানান।

কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক মধ্যপ্রদেশে দশম রাষ্ট্রীয় সংস্কৃতি মহোৎসবের আয়োজন করেছিল। কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি ও পর্যটন দপ্তরের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রতিমন্ত্রী শ্রী প্রহ্লাদ সিং প্যাটেল গত বছর ১৪ই অক্টোবর এই উৎসবের সূচনা করেন। ‘এক ভারত শ্রেষ্ঠ ভারত’ কর্মসূচির আওতায় এই উৎসবের আয়োজন করা হয়েছিল। ২১শে অক্টোবর পর্যন্ত এই উৎসব চলে। পশ্চিমবঙ্গ, মধ্যপ্রদেশ, মহারাষ্ট্র, বিহার সহ বিভিন্ন রাজ্য তাদের নিজস্ব বিভিন্ন খাদ্যসম্ভার নিয়ে হাজির হয়েছিল এই মেলায়। গত বছর ২০শে অক্টোবর দিল্লিতে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রকের সেন্টার ফর কালচারাল রিসোর্স অ্যান্ড ট্রেনিং দপ্তর ‘ডিজিটাল ভারত-ডিজিটাল সংস্কৃতি’র বিষয়ে সিসিআরটি ই-পোর্টাল এবং ইউটিউব চ্যানেলের সূচনা করে। মূলত, ভারতীয় সংস্কৃতিকে তুলে ধরতেই এই ই-পোর্টাল ও ইউটিউব চ্যানেল চালু করা হয়েছে।

আজাদ হিন্দ সরকার গঠনের ৭৬ বছর পূর্তি উপলক্ষে দিল্লির রেড রোডে গত বছর ২১শে অক্টোবর কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি ও পর্যটন দপ্তর এক বিশেষ অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট দপ্তরের প্রতিমন্ত্রী শ্রী প্রহ্লাদ সিং প্যাটেল।

অন্ধ্রপ্রদেশের গোত্তিপ্রোলু ইতিহাসের গোড়ার দিকে যে বাণিজ্যিক কেন্দ্র হিসেবে পরিচিত ছিল তার সন্ধান পেয়েছে ভারতের প্রত্নতাত্ত্বিক সর্বেক্ষণ বিভাগ। এই বিভাগের একটি দল ঐ এলাকায় প্রথম পর্যায়ের খনন কার্য চালাচ্ছে।

২০১৯-এ সংসদে জালিয়ানওয়ালা বাগ জাতীয় স্মারক সংশোধনী বিল পাশ হয়েছে। জালিয়ানওয়ালা বাগের পবিত্র মাটি ‘কলস’-এ ভর্তি করে নিয়ে এসে প্রধানমন্ত্রী হাতে তা তুলে দেওয়া হয়। সেই কলস জাতীয় সংগ্রহশালায় প্রদর্শিত হচ্ছে।

নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু এবং আজাদ হিন্দ ফৌজ সংক্রান্ত ৩০৪টি নথি ভারতের জাতীয় মহাফেজখানায় প্রদর্শিত হচ্ছে। এর মধ্যে ৩০৩টি নথি www.netajipapers.gov.in ওয়েব পোর্টালে আপলোড করা হয়েছে।

ভারতের চিরাচরিত সংস্কৃতি ও ঐতিহ্যকে তুলে ধরতে কেন্দ্রীয় সংস্কৃতি মন্ত্রক ‘ভারতীয় সংস্কৃতি পোর্টাল’ চালু করেছে।

গান্ধীজির সার্ধশত জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে তাঁর স্মৃতিরক্ষায় গঠিত জাতীয় কমিটির দ্বিতীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে গত বছরের ১৯শে ডিসেম্বর রাষ্ট্রপতি ভবনে। রাষ্ট্রপতি শ্রী রামনাথ কোবিন্দ এই বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। বৈঠকে উপ-রাষ্ট্রপতি শ্রী ভেঙ্কাইয়া নাইডু, প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদী, কমিটির সদস্য কেন্দ্রীয় মন্ত্রীগণ, বিভিন্ন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীরা উপস্থিত ছিলেন। এই কমিটির একমাত্র বিদেশি সদস্য হিসেবে পর্তুগালের প্রধানমন্ত্রী মিঃ অ্যান্তোনিও কোস্তাও বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।

প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে উপস্থিত বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গের উদ্দেশে ভাষণ দিতে গিয়ে বলেছেন, গান্ধীজির সার্ধশত জন্মবার্ষিকী শুধু একটি অনুষ্ঠানই নয়, এটি বিশেষ তাৎপর্যপূর্ণ। এই অনুষ্ঠান ‘জন সমন্বয়ে’ রূপান্তরিত হয়েছে এবং এটি প্রত্যেক ভারতবাসীর গর্ব।

 

 

CG/SS/DM



(Release ID: 1598889) Visitor Counter : 98


Read this release in: English