উপ-রাষ্ট্রপতিরসচিবালয়

আমরা যদি আমাদের ভাষার সংরক্ষণ করি তাহলেই সংস্কৃতি এবং ঐতিহ্য রক্ষা পাবে : উপরাষ্ট্রপতি শ্রী এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু
‘ভাষা সংস্কৃতিকে শক্তিশালী করে, সংস্কৃতি সমাজকে মজবুত বানায়’
বিলুপ্ত প্রায় ভারতীয় ভাষাগুলির বিষয়ে উপরাষ্ট্রপতি উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন, এই ভাষাগুলিকে রক্ষা করার জন্য তিনি সম্মিলিতভাবে সমন্বিত উদ্যোগের আহ্বান জানিয়েছেন
‘শ্রী নাইডু মাতৃভাষায় প্রাথমিক স্তরে শিক্ষাদানের আবেদন জানিয়েছেন; স্থানীয় ভাষা প্রশাসন ও আদালতের কাজের মাধ্যম হওয়া উচিত’ : উপরাষ্ট্রপতি শ্রী এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু
ভারতীয় সংস্কৃতির অভিন্ন অঙ্গ হল প্রকৃতিকে রক্ষা করা : উপরাষ্ট্রপতি
শ্রী নাইডু ভার্চুয়ালী সিঙ্গাপুরের শ্রী সংস্ক্রুতিকা কলাসারধির প্রথম বার্ষিকীতে ভাষণ দিয়েছেন

Posted On: 03 JUL 2021 8:16PM by PIB Kolkata

নতুন দিল্লি, ৩ জুলাই, ২০২১

উপরাষ্ট্রপতি শ্রী এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু কিছু ভাষার সঙ্কটাপন্ন অবস্থার কথা উল্লেখ করে আমাদের ভাষাগুলিকে সংরক্ষণের উপর গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, ভাষা আমাদের সাংস্কৃতিক ঐতিহ্য রক্ষা করার মূল চাবিকাঠি। “যে কোনো সংস্কৃতির জীবনই শক্তি হল ভাষা। ভাষা সংস্কৃতিকে শক্তিশালী করে, সংস্কৃতি সমাজকে মজবুত বানায়’।”
শ্রী নাইডু রাষ্ট্রসংঘের একটি প্রতিবেদন উল্লেখ করে উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। ঐ প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, প্রতি ২ সপ্তাহ অন্তর পৃথিবী থেকে একটি করে ভাষা বিলুপ্ত হয়ে যাচ্ছে। ভারতে ১৯৬ টি ভাষা বর্তমানে সঙ্কটাপন্ন। শ্রী নাইডু এই পরিস্থিতির পরিবর্তনের আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি আশা করেন প্রত্যেক ভারতীয় ঐক্যবদ্ধভাবে আমাদের ভাষাগুলিকে সংরক্ষণ করার জন্য এগিয়ে আসবে।
উপরাষ্ট্রপতি ২০২১ সালে “আন্তর্জাতীয় সংস্ক্রুতিকা সম্মেলনম” –এ ভাষণ দিচ্ছিলেন। সিঙ্গাপুরের সাংস্কৃতিক সংগঠন শ্রী সংস্ক্রুতিকা কলাসারধি তাদের প্রথম বার্ষিকীতে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল। বিদেশে বসবাসরত ভারতীয়দের সাংস্কৃতিক দূত হিসেবে উল্লেখ করে উপরাষ্ট্রপতি তাঁদের ভারতীয় মূল্যবোধ ও সংস্কৃতিকে বাঁচিয়ে রাখার আহ্বান জানিয়েছেন। আমাদের প্রাচীন মূল্যবোধকে প্রবাসীরা যেভাবে ছড়িয়ে দিচ্ছেন, তার জন্য দেশ গর্বিত।
শ্রী নাইডু, আমাদের সংস্কৃতিকে রক্ষা করার প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্ব দিয়েছেন। তিনি বলেছেন, প্রাথমিক এবং মাধ্যমিক স্তরে শিক্ষার মাধ্যম হওয়া উচিত মাতৃভাষা। তিনি পরামর্শ দিয়েছেন, কারিগরি শিক্ষায় ধীরে ধীরে মাতৃভাষায় পঠন পাঠন চালু করা হোক। তিনি প্রশাসন আদালতের কাজে স্থানীয় ভাষা ব্যবহারের উপর গুরুত্ব দিয়েছেন। এর ফলে সাধারণ মানুষ উপকৃত হবেন। প্রত্যেককে নিজের মাতৃভাষার প্রতি গর্ববোধ করার আহ্বান জানিয়ে শ্রী নাইডু বলেছেন, নিজের পরিবারের সদস্য, সম্প্রদায়ের লোকজন এবং কোনো অনুষ্ঠানে যখন সবার সঙ্গে কথা বলবেন, তখন মাতৃভাষায় কথা বলুন। ইউনেস্কোর সংস্কৃতির সংজ্ঞার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেছেন, শুধুমাত্র সাহিত্য এবং শিল্পকলাই নয়, জীবন যাত্রা, জীবন ধারা, মূল্যবোধ এবং ঐতিহ্য মিলে মিশে একাকার হয়ে সংস্কৃতির রূপ নেয়। ভারতীয় সংস্কৃতির অবিচ্ছেন্দ্য অঙ্গ হল প্রকৃতিকে ভালোবাসা। আমরা গাছ, নদ-নদী, বন্য প্রাণী এবং গবাদী পশুকে আরাধনা করি। ভারতীয় মূল্যবোধ হল সারা বিশ্বকে একটি পরিবার হিসেবে বিবেচনা করা। সবার সঙ্গে ভাগ করে সকলের যত্ন করা – আমাদের এই প্রাচীন দর্শনকে আমরা কখনই ভুলে যাবো না।
উপরাষ্ট্রপতি বলেছেন, কোভিড – ১৯ এর কারণে মানুষের মধ্যে মানসিক চাপ বেড়েছে। আধ্যাত্মিকতার মধ্য দিয়ে এই চাপ মুক্ত হতে পারে। এই চাপ থেকে মুক্তির জন্য তিনি ধর্মীয় ও আধ্যাত্মিক নেতৃবৃন্দকে মানুষের কাছে গিয়ে তাদের সাহায্য করার আবেদন জানিয়েছেন।
ভারতে বহু ভাষা ও সংস্কৃতি রয়েছে। উপরাষ্ট্রপতি বলেছেন, বৈচিত্র্যের মধ্যে ঐক্য এই ভাবধারা আমাদের সকলকে এক সূত্রে বেঁধেছে। একটি মহান সভ্যতার ভীত হল ভাষার বৈচিত্র্য। আমাদের সাংস্কৃতিক মূল্যবোধ ভাষা, সঙ্গীত, শিল্পকলা, খেলাধূলো এবং উৎসবের মধ্যদিয়ে প্রকাশিত হয়। রাজনৈতিক সীমানা পরিবর্তন হলে হতেও পারে। কিন্তু আমাদের মাতৃভাষা এবং আমাদের শিকড় কখনই বদলাবে না। সঙ্ঘবদ্ধ উদ্যোগে আমাদের মাতৃভাষার সংরক্ষণের তিনি আহ্বান জানিয়েছেন।
শ্রী নাইডু বলেছেন, প্রত্যেকের নিজের ভাষা এবং সংস্কৃতিকে রক্ষা করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। একই সঙ্গে অন্য ভাষা এবং সংস্কৃতিকে সমানভাবে সম্মান জানাতে হয়। অনুষ্ঠানে কাঞ্চি কামোকটি পীঠাধিপতি শ্রী বিজয়েন্দ্র সরস্বতী, প্রাক্তন সাংসদ শ্রী মগন্তিমুরালি মোহন, অন্ধ্রপ্রদেশ বিধানসভার প্রাক্তন উপাধ্যক্ষ শ্রী মন্ডলি বুদ্ধ প্রসাদ, শ্রী সংস্কৃতি কালাসারাধির সভাপতি শ্রী রত্নকুমার কভুতুরু উপস্থিত ছিলেন।

CG/CB/SFS



(Release ID: 1732549) Visitor Counter : 45


Read this release in: English