বিজ্ঞানওপ্রযুক্তিমন্ত্রক

জৈব প্রযুক্তি দপ্তর মুম্বাইয়ের টাটা হাসপাতালে এসিটিআরইসি-তে প্রথম সিএআর-টি কোষ চিকিৎসা পদ্ধতি প্রয়োগে সাহায্য করেছে

Posted On: 08 JUN 2021 5:33PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ৮ জুন, ২০২১

ক্যান্সারের চিকিৎসায় কাইমেরাক অ্যান্টিজেন রিসেপটর টি-সেল (সিএআর-টি) থেরাপি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। সারা বিশ্বজুড়ে মূলত যেসব রোগী লিম্ফোসাইটিক লিউকোমিয়ার চূড়ান্ত পর্যায়ে আক্রান্ত তাদের ওপর এই থেরাপি প্রয়োগ করে ভালো ফল পাওয়া গেছে। ক্যান্সার আক্রান্তদের জন্য এই প্রযুক্তি গুরুত্বপূর্ণ হলেও ভারতে বর্তমানে এই প্রযুক্তি প্রয়োগ হয়না। একজন রোগীর সিএআর-টি কোষ চিকিৎসায় ৩-৪ কোটি টাকা ব্যয় হয়। আর তাই দেশীয় প্রযুক্তি ব্যবহার করে এই চিকিৎসা করানোর ওপর গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে।
সিএআর-টি কোষ প্রযুক্তিকে ক্যান্সার চিকিৎসা সহ অন্যান্য অসুখের নিরাময়ে ব্যবহার করার জন্য জৈব প্রযুক্তি দপ্তর এবং বাইরেক গত ২ বছর ধরে বিভিন্ন সংস্থার কাছ থেকে প্রস্তাব চেয়েছে।
ভারতে ক্যান্সার চিকিৎসার জন্য প্রথমবারের মত সিএআর-টি কোষ চিকিৎসা ব্যবস্থা বা জিন থেরাপির প্রয়োগ চৌঠা জুন করা হোল। টাটা মেমোরিয়াল হাসপাতাল এবং বম্বে আইআইটি যৌথভাবে এসিটিআরইসি-তে বোন ম্যারো প্রতিস্থাপনের কাজ করেছে। বম্বে আইআইটি-র জৈব বিজ্ঞান ও জৈব প্রযুক্তি দপ্তর এই সিএআর-টি কোষগুলি তৈরি করেছে।
এই উদ্যোগে বাইরেক-পিএসিই প্রকল্প সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। ন্যাশনাল বায়ো-ফার্মা মিশনের অধীনে জৈব প্রযুক্তি দপ্তর এবং বাইরেক সিএআর-টি উৎপাদন করে সেটির ১/২ পরীক্ষামূলকভাবে চিকিৎসার কাজে ব্যবহার করেছে। ভারতে চিকিৎসার কাজে জিন থেরাপির প্রয়োগ এই প্রথম। বম্বে আইআইটি-র নির্দেশক ডঃ শুভাশিষ চৌধুরী জানিয়েছেন তাঁদের প্রতিষ্ঠান এবং দেশ এক গুরুত্বপূর্ণ সাফল্য অর্জন করল। ক্যান্সার চিকিৎসায় এটি অত্যন্ত জটিল একটি পদ্ধতি। ন্যাশনাল বায়ো-ফার্মা মিশন লেন্টিভাইরাল ভেক্টর তৈরি করার কাজে সাহায্য করেছে। এরপর সেখান থেকে সংশোধিত টি-সেলকে মানব শরীরে প্রবেশ করানো হয়েছে। লিম্ফোসাইটিক লিউকোমিয়া, মাল্টিপল মায়েলোমা, গ্লিব্লাস্টোমা, হেপাটোসেলুলার কারসেনোমা-র মতো অসুখে সিএআর-টি কোষ প্রযুক্তি প্রয়োগ যথেষ্ট গুরুত্বপূর্ণ।

CG/CB/NS



(Release ID: 1725355) Visitor Counter : 55


Read this release in: English