যোগাযোগওতথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রক

কোভিড-১৯ সংক্রমণ ছড়িয়ে পরার সঙ্গে ৫জি প্রযুক্তির কোনো সম্পর্ক নেই

Posted On: 10 MAY 2021 11:49AM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ১০ মে, ২০২১

যোগাযোগ মন্ত্রকের টেলি-যোগাযোগ দপ্তরের নজরে এসেছে বিভিন্ন সোস্যাল মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে কিছু পোস্টে বলা হচ্ছে ভারতে ৫জি মোবাইল টাওয়ারের পরীক্ষা-নিরীক্ষার জন্যই করোনা ভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ আছড়ে পরেছে। টেলি-যোগাযোগ দপ্তর এক প্রেস বিবৃতিতে জানিয়েছে এই ধরণের বার্তা শুধু ভুলই নয় সম্পূর্ণ অসত্য। ওই প্রেস বিবৃতিতে জনসাধারণকে জানানো হয়েছে ৫জি প্রযুক্তির সঙ্গে দেশে কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পরার কোনো সম্পর্ক নেই। জনসাধারণ যাতে এ ধরণের গুজবে বিভ্রান্ত না হন ওই বিবৃতিতে সেটিও উল্লেখ করা হয়েছে। এই ধরণের বক্তব্যের কোনো বৈজ্ঞানিক ভিত্তি নেই। সর্বোপরি দেশে এখনও ৫জি নেটওয়ার্কের কোনো পরীক্ষা-নিরীক্ষা শুরু হয়নি। তাই এ ধরণের বক্তব্য অসত্য ও ভিত্তিহীন।
মোবাইল ফোনের টাওয়ারগুলি থেকে যে রেডিও ফ্রিকোয়েন্সি বিকিরিত হয় সেগুলি আয়োনিত তরঙ্গ নয়। এই ধরণের তরঙ্গ মানুষের শরীরে কোষের ওপর কোনো বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেনা। বেস স্টেশন থেকে যে হারে তরঙ্গর বিকিরণ হয় তার মাত্রার থেকে ১০ গুন বেশি বিকিরণ মানুষের শরীরে প্রবেশ করলেও কোনো সমস্যা হয়না। ভারতে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা এবং ইন্টারন্যাশনাল কমিশন অন নন-আয়োনাইজিং রেডিয়েশন প্রোটেকশনের নিয়ম অনুসারে কাজ করা হয়।
টেলি-যোগাযোগ দপ্তরের গৃহিত উদ্যোগ
টেলি-যোগাযোগ দপ্তর জানিয়েছে ভারতে যেসব সংস্থাগুলি মোবাইল পরিষেবা দিয়ে থাকে তারা নির্দিষ্ট নিয়ম মেনেই সব কাজ করে। তবে কোনো নাগরিকের যদি মোবাইল টাওয়ার থেকে বিকিরিত তরঙ্গের বিষয়ে কোনো সংশয় থাকে তাহলে তিনি ওই টাওয়ারের তরঙ্গের বিষয়ে পরীক্ষার জন্য তরঙ্গ সঞ্চার পোর্টালে আবেদন করতে পারেন। https://tarangsanchar.gov.in/emfportal- পোর্টালে আবেদন করলে সংশ্লিষ্ট টাওয়ারের বিকিরণ সম্পর্কে জানানো হবে। এছাড়াও মানুষের মধ্যে সচেতনতা গড়ে তুলতে দেশজুড়ে দপ্তর বিভিন্ন উদ্যোগ নিয়েছে। এর মধ্যে আছে লিফলেটের মাধ্যমে প্রচার, সংবাদপত্রে বিজ্ঞাপন এবং তরঙ্গ পোর্টালে প্রকাশিত নানা তথ্য। এর মাধ্যমে মোবাইল ফোনের টাওয়ার থেকে বিকিরিত রশ্মি সম্পর্কে সঠিক বৈজ্ঞানিক তথ্য মানুষের কাছে পৌঁছে দেওয়া হয়।

CG/CB /NS



(Release ID: 1717596) Visitor Counter : 102


Read this release in: English