উপ-রাষ্ট্রপতিরসচিবালয়

মহিলাদের স্বাস্থ্যগত চাহিদার ব্যাপারে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়ার আহ্বান জানালেন উপ-রাষ্ট্রপতি

Posted On: 30 APR 2021 12:37PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লি, ৩০ এপ্রিল, ২০২১

 

দেশের মোট জনসংখ্যার প্রায় ৫০ শতাংশই মহিলা। তাই তাঁদের স্বাস্থ্যগত চাহিদার ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেওয়ার প্রয়োজন রয়েছে বলে অভিমত প্রকাশ করলেন উপ-রাষ্ট্রপতি শ্রী এম ভেঙ্কাইয়া নাইডু। শ্রী নাইডু আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে হায়দরাবাদ-ভিত্তিক স্ত্রী-রোগ বিশেষজ্ঞ ডঃ ইভিতা ফার্নান্ডেজকে মহিলাদের স্বাস্থ্য পরিচর্যা ও ক্ষমতায়নের ক্ষেত্রে অসামান্য সেবার স্বীকৃতিস্বরূপ ‘যুদ্ধবীর স্মারক পুরস্কার’ প্রদান করে ভাষণ দিচ্ছিলেন। তিনি বলেন, “আমরা সুস্থ-সবল সমাজ তখনই গড়ে তুলতে পারব যখন আমরা মহিলাদের স্বাস্থ্যের বিষয়টিতে সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেব। আমরা যদি তাঁদের স্বাস্থ্যের বিষয়টিকে উপেক্ষিত রাখি তাহলে সুস্থ-সবল সমাজ গঠন কখনই সম্ভব নয়।”  

উপ-রাষ্ট্রপতি আরও বলেন, স্বাস্থ্য সংক্রান্ত পরিকল্পনা ও কর্মসূচিগুলিতে আরও বেশি করে মহিলাদের স্বাস্থ্যগত চাহিদা পূরণ করার ওপর গুরুত্ব দিতে হবে। “আমাদের সকলকে একথা স্মরণে রাখতে হবে যে এক সুস্থ-সবল সমাজের মূল ভিত্তিস্তম্ভই হল মহিলারা”, বলে শ্রী নাইডু অভিমত প্রকাশ করেন।

দেশে মাতৃত্বকালীন মৃত্যু হার কমানোর ক্ষেত্রে লক্ষ্যণীয় অগ্রগতি হয়েছে বলে উল্লেখ করে উপ-রাষ্ট্রপতি রাষ্ট্রসঙ্ঘের সুস্থায়ী উন্নয়নের উদ্দেশ্য অর্জনের অন্যতম একটি লক্ষ্য হিসেবে মাতৃত্বকালীন মৃত্যু হার কমিয়ে ৩.১ করার যে পরিকল্পনা স্থির হয়েছে তা দ্রুত পূরণ করা অত্যন্ত জরুরি বলে মন্তব্য করেন। উল্লেখ করা যেতে পারে, রাষ্ট্রসঙ্ঘের সুস্থায়ী উন্নয়নের উদ্দেশ্য পূরণের অন্যতম লক্ষ্য হিসেবে ২০৩০-এর মধ্যে প্রতি ১ লক্ষ জীবন্ত শিশু জন্মের ক্ষেত্রে বিশ্বব্যাপী মাতৃত্বকালীন মৃত্যু হার কমিয়ে ৭০ করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে। 

শ্রী নাইডু দেশে মহিলাদের মধ্যে অপুষ্টির সমস্যা দ্রুত দূর করার জন্য আন্তরিক প্রয়াস গ্রহণের আহ্বান জানান। ‘যুদ্ধবীর স্মারক পুরস্কার’ জয়ী ডঃ ইভিতা ফার্নান্ডেজের নিঃস্বার্থ সেবার প্রশংসা করে উপ-রাষ্ট্রপতি বলেন, মহিলাদের স্বাস্থ্য এবং প্রজনন সংক্রান্ত বিষয়ে তাঁর গুরুত্বপূর্ণ অবদান রয়েছে। ডঃ ফার্নান্ডেজকে মহিলা ক্ষমতায়ন এবং স্বাভাবিক প্রসবের ক্ষেত্রে এক জোড়ালো সওয়ালকারী হিসেবে উল্লেখ করে শ্রী নাইডু বলেন, স্বাভাবিক প্রসবের ক্ষেত্রে মহিলাদের সচেতন করে তোলার জন্য ডঃ ফার্নান্ডেজ কোনও প্রচেষ্টাই বাদ রাখেননি। 

সরকারি হাসপাতালগুলিতে স্বাভাবিক প্রসবের সংখ্যা বৃদ্ধি এবং সিজার পদ্ধতিতে জন্মদানের প্রবণতা হ্রাস করার লক্ষ্যে তেলেঙ্গানা সরকার এবং ফার্নান্ডেজ হাসপাতাল সহ ইউনিসেফ-এর প্রচেষ্টার কথা উল্লেখ করে উপ-রাষ্ট্রপতি সমবেত এই প্রয়াসকে মহৎ উদ্যোগ হিসেবে বর্ণনা করেন। শ্রী নাইডু এই উদ্যোগে আরও বেসরকারি হাসপাতালকে সামিল হওয়ার আহ্বান জানান। 

প্রয়াত শ্রী যুদ্ধবীরের প্রতি বিনম্র শ্রদ্ধা জানিয়ে উপ-রাষ্ট্রপতি বলেন, তিনি ছিলেন বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী। একাধারে তিনি ছিলেন স্বাধীনতা সংগ্রামী ও সমাজ সংস্কারক, অন্যদিকে এক প্রতিষ্ঠিত সাংবাদিক। আস্থা ও সততার এক মূর্ত প্রতীক হিসেবে যুদ্ধবীরকে উল্লেখ করে শ্রী নাইডু বলেন, তাঁর নৈতিক সাংবাদিকতার আদর্শ কখনই মাথানত করেনি। শ্রী নাইডু এ প্রসঙ্গে উর্দুতে ‘মিলাপ ডেইলি’ এবং পরবর্তীকালে এই পত্রিকার হিন্দি সংস্করণের কথাও উল্লেখ করেন। তিনি বলেন, হিন্দি ভাষায় প্রকাশিত ‘মিলাপ’ সংবাদপত্রটি নৈতিকতা এবং আপোষহীন সাংবাদিকতার সমার্থক হয়ে উঠেছে। হায়দরাবাদ এবং দক্ষিণ ভারতে হিন্দিভাষী পাঠকদের কাছে এই পত্রিকা এক অভিন্ন অঙ্গ হয়ে উঠেছে। 

এই পুরস্কার প্রদান অনুষ্ঠানে যুদ্ধবীর ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান শ্রী মুরলীধর গুপ্তা, ফার্নান্ডেজ ফাউন্ডেশনের চেয়ারপার্সন ডঃ ইভিতা ফার্নান্ডেজ, প্রয়াত শ্রী যুদ্ধবীরের পুত্র শ্রী বিনয় বীর এবং পারিবারিক সদস্যরা যোগ দেন।

 

 

SC/BD/DM/



(Release ID: 1715108) Visitor Counter : 7


Read this release in: English