বৈদ্যুতিন ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক

তথ্যপ্রযুক্তির হার্ডওয়্যারের জন্য উৎপাদন ভিত্তিক উৎসাহদায়ক প্রকল্পে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার অনুমোদন

Posted On: 24 FEB 2021 3:45PM by PIB Kolkata

নয়াদিল্লী, ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০২১

               

প্রধানমন্ত্রী শ্রী নরেন্দ্র মোদীর পৌরোহিত্যে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে তথ্যপ্রযুক্তির হার্ডওয়্যারের জন্য উৎপাদন ভিত্তিক উসাহদায়ক প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে। এই কর্মসূচিতে দেশীয় উৎপাদনকারীদের উৎসাহদানের জন্য উৎপাদনের পরিমাণকে যুক্ত করা হয়েছে এবং তথ্যপ্রযুক্তির হার্ডওয়্যারে মূল্য শৃঙ্খলে এর মাধ্যমে বিনিয়োগকে উৎসাহিত করা হচ্ছে। প্রস্তাবিত এই প্রকল্পে ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, অল ইন ওয়ান পিসি এবং সার্ভার রয়েছে।  

এই প্রকল্পটি ২০১৯-২০ অর্থবর্ষকে ভিত্তিবর্ষ হিসেবে বিবেচনা করে প্রকৃত ক্রমবর্ধমান বিক্রির পরিমাণের ওপর উৎসাহদায়ক হার নির্ধারণ করবে, যার পরিমাণ ৪ থেকে ২-১ শতাংশ হবে। দেশে বিভিন্ন পণ্যের উৎপাদন এবং বৈধ সংস্থাগুলির এই উৎপাদনের ক্ষেত্রে ৪ বছরের মেয়াদকে বিবেচনা করা হবে।  

এই প্রকল্পটি মূলত ৫টি বড় সংস্থা এবং ১০টি দেশীয় সংস্থার ক্ষেত্রে সুবিধাজনক হবে। এইসব সংস্থাগুলি তথ্য প্রযুক্তির হার্ডওয়্যারের সামগ্রী౼ ল্যাপটপ, ট্যাবলেট, অল ইন ওয়ান পিসি এবং সার্ভার তৈরি করে। আত্মনির্ভর ভারত অভিযানে এই সব সামগ্রী দেশে উৎপাদনে উৎসাহ দেওয়ার বিষয়টি অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। কারণ বর্তমানে এগুলি প্রচুর পরিমাণে বিদেশ থেকে আমদানি করা হয়।

আর্থিক ক্ষেত্রে যুক্ত বিভিন্ন বিষয়

এই পুরো প্রকল্পের সময়সীমা ৪ বছর। এর আর্থিক মূল্য ৭ হাজার ৩৫০ কোটি টাকা౼ এর মধ্যে উৎসাহদায়ক ক্ষেত্রে ব্যয় হবে ৭ হাজার ৩২৫ কোটি টাকা এবং প্রশাসনিক ক্ষেত্রে ব্যয় হবে ২৫ কোটি টাকা।

সুবিধা

এই প্রকল্পটি দেশে বৈদ্যুতিন সামগ্রী উৎপাদনে উৎসাহ যোগাবে। আন্তর্জাতিক মূল্য শৃঙ্খলের সঙ্গে সাযুজ্য রেখে ভারত বৈদ্যুতিন ব্যবস্থাপনার নকশা ও নির্মাণে বিশ্বে গুরুত্বপূর্ণ কেন্দ্র হয়ে উঠবে । তথ্যপ্রযুক্তির জন্য যেসব সংস্থা হার্ডওয়্যারের সামগ্রী উৎপাদন করে তারা ভারতে বিনিয়োগ করবে।

এর ফলে ১ লক্ষ ৮০ হাজার (প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষ) কর্মসংস্থানের সুযোগ তৈরি হবে।

এই প্রকল্প তথ্যপ্রযুক্তির হার্ডওয়্যারের সংস্থাগুলির ২০২৫ সালের মধ্যে ২০-২৫ শতাংশ বৃদ্ধিতে সহায়তা করবে।

প্রেক্ষাপট

২০১৯ সালের বৈদ্যুতিন সামগ্রীর ওপর জাতীয় নীতি ২৫শে ফেব্রুয়ারি প্রজ্ঞাপিত হয়েছিল। ভারতকে বৈদ্যুতিন সামগ্রীর নকশা এবং উৎপাদন কেন্দ্রে পরিণত করাই যার মূল লক্ষ্য। দেশে এই শিল্পের জন্য প্রয়োজনীয় পরিবেশ গড়ে তুলতে সব রকমের সহায়তা দেওয়া হবে, যাতে সংশ্লিষ্ট সংস্থাগুলি আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে পারে। 

২০১৯-২০ সালের হিসেবে ভারতে ৪২১ কোটি মার্কিন ডলারের ল্যাপটপ এবং ৪১ কোটি মার্কিন ডলারের ট্যাবলেট আমদানি করা হয়েছে। তথ্যপ্রযুক্তির জন্য হার্ডওয়্যার নির্মাণকারী পণ্যের বাজার সারা বিশ্বে ৬-৭টি সংস্থার নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। এইসব সংস্থাগুলি বিশ্বের মোট বাজারের ৭০ শতাংশ নিজেদের আয়ত্বে রেখেছে। বৃহৎ অর্থনীতিকে বিশ্ব বাজারে প্রতিযোগিতায় সামিল করতে এইসব সংস্থাগুলিকে ভারতে বিনিয়োগে উৎসাহ দেওয়া হচ্ছে, যাতে ভারত তথ্যপ্রযুক্তির হার্ডওয়্যার সামগ্রীর উৎপাদনের কেন্দ্র হতে পারে। 

বর্তমান আন্তর্জাতিক প্রেক্ষাপটে নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানগুলি তাদের উৎপাদন কেন্দ্রর পরিবর্তন করছে। একটি বাজারের ওপর নির্ভর করলে যে ঝুঁকি থাকে তার থেকে বেরিয়ে আসার জন্য সংস্থাগুলি তাদের কর্মকান্ড সম্প্রসারণে আগ্রহী। 

***

 

 

CG/CB/NS



(Release ID: 1700520) Visitor Counter : 19